ওয়ার্নারের ফিফটির পর আবারও বৃষ্টি, খেলা না হলে সমীকরণে যে দল এগিয়ে


ইনিংসের ১১তম ওভারে তাসকিন আহমেদের প্রথম বলেই ফ্লিক করে ছক্কায় ফিফটি পূর্ণ করলেন ডেভিড ওয়ার্নার। বিশ্বকাপে অষ্টম ফিফটি পূর্ণ করতে তার লেগেছে ৩৪ বল। পরের বলে তার নেয়া সিঙ্গেলে অস্ট্রেলিয়ার দলীয় স্কোর দাঁড়ায় ১০০। এবং এরপর আবারও বৃষ্টি হানা দেয়।

এবার বেশ জোরেই। ১১.২ ওভার পর ডিএলএস পদ্ধতিতে ২৮ রানে এগিয়ে অস্ট্রেলিয়া, এ সময়ে পার স্কোর ৭২ রান। আর যদি খেলা শুরু করা না যায় তাহলে ডিএলএস মেথডে জয় পাবে অস্ট্রেলিয়া।

এর আগে সুপার এইটে নিজেদের প্রথম ম্যাচে ব্যাটিং সহায়ক উইকেট পেয়েও বড় সংগ্রহ গড়তে পারেনি বাংলাদেশ। শান্ত-হৃদয় ছাড়া এদিন ব্যাটাররা সবাই ছিলেন ব্যর্থ। ব্যাটারদের ব্যর্থতার দিনে বোলিংয়েও শুরুটা হয়েছিল হতাশার। শুরুর পাওয়ার প্লেতে কোনো উইকেট শিকার করতে পারেনি বাংলাদেশ। তবে এরপর বোলিংয়ে এসে পরপর দুই ওভারে দুই উইকেট নিয়েছেন রিশাদ হোসেন।

ছোট লক্ষ্য তাড়ায় শুরুটা উড়ন্ত শুরু পেয়েছে অস্ট্রেলিয়া। ইনিংসের দ্বিতীয় বলেই শেখ মেহেদিকে রিভার্স সুইপে বাউন্ডারি হাঁকান ডেভিড ওয়ার্নার। এই অজি বোলারদের থিতু হওয়ারই সুযোগ দেননি। আরেক ওপেনার ট্রাভিস হেডও একই পথে হেটেছেন। দুই ওপেনারের সাবলীল ব্যাটিংয়ে শুরুর পাওয়ার প্লেতে কোনো উইকেট না হারিয়ে ৫৯ রান তুলে অস্ট্রেলিয়া।

পাওয়ার প্লে শেষে বোলিংয়ে আসেন রিশাদ হোসেন। ষষ্ঠ ওভারের দ্বিতীয় বল হওয়ার পরই ম্যাচে হানা দেয় বৃষ্টি। অবশ্য সেটার স্থায়িত্ব ছিল দুই-তিন মিনিট। এরপর মাঠ প্রস্তুতের কাজও চলছিল। তবে মিনেট দশেক পরই আরেক দফা বৃষ্টি নামে। সবমিলিয়ে ২০ মিনিটের মত খেলা বন্ধ ছিল।

বৃষ্টির পর খেলা শুরু হলে উইকেটের দেখা পায় বাংলাদেশ। সপ্তম ওভারের পঞ্চম বলে ট্রাভিস হেডকে বোল্ড করেন এই লেগি। সাজঘরে ফেরার আগে ২১ বলে ৩১ রান করেছেন এই ওপেনার।


Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *