Kolome71

সন্দেহজনক গর্ত নিয়ে শুরু হয় লঙ্কাকাণ্ড, অবশেষে যা পাওয়া গেল

সন্দেহজনক গর্ত নিয়ে শুরু হয় লঙ্কাকাণ্ড, অবশেষে যা পাওয়া গেল

শেরপুরের ঝিনাইগাতীতে একটি পতিত জমিতে সন্দেহজনক নতুন একটি গর্তের সন্ধান পেয়েছেন স্থানীয় কৃষকরা। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে আসে পুলিশ। ভিড় করে উৎসুক জনতাও। কি লুকানো আছে গর্তে তা নিয়ে শুরু হয় জল্পনা-কল্পনা। সন্দেহ যাচাইয়ে শুরু হয় খোঁড়াখুঁড়ি। ঘটে লঙ্কাকাণ্ড।

মঙ্গলবার (১৯ মার্চ) সকালে উপজেলার নলকুড়া ইউনিয়নের সাবেক ইউনিয়ন পরিষদ সদস্য আব্দুল খালেকের পতিত এক জমিতে শুরু হয় এ লঙ্কাকাণ্ড। সন্দেহজনক গর্ত খুঁড়তে নিয়োগ দেওয়া হয় শ্রমিক। খোঁড়াখুঁড়ি ঘিরে ভিড় করে কয়েক শত উৎসুক জনতার ঢল।

স্থানীয়রা জানান, সকালে কয়েকজন কৃষক ক্ষেতে কাজ করার সময় পাশেই আব্দুল খালেকের পতিত জমিতে একটি গর্ত দেখতে পায়। পরে কাছে গিয়ে গর্তে কিছু একটা দেখতে পেয়ে পুলিশকে খবর দেন তারা। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ আসে। শুরু হয় অনুসন্ধান। পরে পুলিশের উপস্থিতিতে দুজন শ্রমিক দিয়ে গর্ত খুঁড়ার কাজ শুরু হয়।

এদিকে লোকমুখে ঘটনাটি ছড়িয়ে পড়লে উৎসুক জনতার ঢল নামে ঘটনাস্থলে। উৎসুক জনতার ভিড় সামলাতে রীতিমতো হিমশিম খায় পুলিশ।

পুলিশ জানায়, প্রায় তিন ঘণ্টায় ছয় ফুট গভীর গর্ত খুঁড়ার পর সেখান থেকে উদ্ধার করা হয় পাঁচ ফুট উচ্চতার আটকে পড়া একটি বাঁশ। পরে পুলিশ গর্ত খুঁড়া বন্ধ করে দেয়।

ঝিনাইগাতী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) বছির আহম্মেদ বাদল জানান, স্থানীয়দের কাছে খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে যায় পুলিশ। ওই গর্তে কোনো লা.শ বা মা.দ.ক থাকতে পারে বলে প্রাথমিকভাবে সন্দেহ করা হয়। তাই গর্ত খুঁড়া হয়। কিন্তু সেখানে তেমন কিছু পাওয়া যায়নি একটা বাঁশ ছাড়া। পরে খোঁড়া গর্তটি বন্ধ করে দেওয়ার নির্দেশ দিয়ে বাঁশটি থানায় নিয়ে আসা হয়েছে বলেও জানান ওসি।-dailyjanakantha


Posted

in

by

Tags:

Comments

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *