Kolome71

হাসারাঙ্গার জাদুকরি বোলিংয়ের পরেও চ্যালেঞ্জিং সংগ্রহ বাংলাদেশের

প্রথম ওভারে লিটন দাসের উইকেট হারালেও সৌম্য সরকার এবং নাজমুল হোসেন শান্তর ব্যাটে ঘুরে দাঁড়ায় বাংলাদেশ। তবে টাইগারদের প্রতিরোধ একাই গুড়িয়ে দেন ওয়ানিন্দু হাসারাঙ্গা। একাই ৪ উইকেট নিয়ে বাংলাদেশকে বড় সংগ্রহ গড়তে দেননি এই স্পিনার। তবে শেষদিকে তাওহীদ হৃদয়ের হার না মানা ইনিংসে চ্যালেঞ্জিং সংগ্রহ দাড় করিয়েছে বাংলাদেশ।

শুক্রবার (১৫ মার্চ) চটগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরি স্টেডিয়ামে সিরিজের দ্বিতীয় ওয়ানডেতে মুখোমুখি হয়েছে বাংলাদেশ এবং শ্রীলঙ্কা। টস হেরে ব্যাটিংয়ে নেমে প্রথম ইনিংস শেষে লঙ্কানদের ২৮৭ রানের লক্ষ্য দিয়েছে টাইগাররা।

ব্যাটিংয়ে নেমে ইনিংসের তৃতীয় বলে আউট হয়েছেন লিটন। টাইগার ওপেনারকে আউট করতে দারুণ ফাঁদ পেতেছিল সফরকারীরা। আর সেই ফাঁদে পা দিয়ে দিলশান মাদুশঙ্কার লেন্থ বলে স্কয়ার লেগে ক্যাচ দেন লিটন।

শুরুতেই উইকেট হারালেও খুব একটা বিপদে পড়েনি বাংলাদেশ। দ্বিতীয় উইকেটে হাল ধরেন গত ম্যাচের সেঞ্চুরিয়ান নাজমুল হোসেন শান্ত এবং সৌম্য সরকার। দ্বিতীয় উইকেটে এই দুজন মিলে ৭৫ রান যোগ করেন।

ভালো শুরু এনে দিয়ে বেশিক্ষণ স্থায়ী হতে পারেননি গত ম্যাচের সেঞ্চুরিয়ান শান্ত। ৩৯ বলে ৪০ রান করে আউট হন দিলশান মাদুশঙ্কার দ্বিতীয় শিকার হয়ে। বাংলাদেশ ইনিংসের ১৩তম ওভারে স্লিপে ধরা পড়েন অধিনায়ক।

তৃতীয় উইকেটে হৃদয়কে আবারও জুটি বাধেন সৌম্য। এই জুটি থেকে আসে  ৫৫ রান। ২২তম ওভারে বোলিংয়ে এসে এই জুটি ভাঙেন হাসারাঙ্গা। ৬৬ বলে ৬৮ রানের ঝলমলে ইনিংস খেলে হাসারাঙ্গাকে রিভার্স সুইপ করতে গিয়ে আউট হন সৌম্য। বাউন্ডারিতে তার দুর্দান্ত ক্যাচ নেন দিলশান মাদুশঙ্কা।

একই ওভারে ব্যাটিংয়ে নেমে আউট হন রিয়াদ। নিজের খেলা দ্বিতীয় বলেই হাসারাঙ্গাকে স্টেপ আউট করে মারতে যান তিনি। স্ট্যাম্পিং হয়ে শূন্য রানে ফিরতে হয়েছে অভিজ্ঞ এই ব্যাটারকে।

পঞ্চম উইকেটে তাওহীদ হৃদয়কে নিয়ে ধীরেসুস্থে এগোচ্ছিলেন মুশফিকুর রহিম। তবে এবারও বাধ সাধেন হাসারাঙ্গা। এই স্পিনারের লেগ স্পিন বলে সুইপ খেলতে গিয়ে আউট হন মুশফিক। ২৮ বলে ২৫ রান করে ফেরেন তিনি। মেহেদী হাসান মিরাজকেও বোল্ড করেন হাসারাঙ্গা। এই স্পিন জাদুকরের বল সামনে এসে খেলতে গিয়ে আউট হন মিরাজ। ১২ রান করেছেন এই অলরাউন্ডার।

সপ্তম উইকেটে তানজিম হাসান সাকিবকে নিয়ে ৪৭ রানের জুটি গড়েন হৃদয়। বিপদ কিছুটা সামাল দেয়ার পর তানজিম ফেরেন কুমারার বলে ক্যাচ হয়ে। শেষদিকে ব্যাট হাতে ঝড় তোলেন তাসকিন আহমেদ এবং হৃদয়। তাতে    রানের সংগ্রহ পায় বাংলাদেশ।

ব্যাটিংয়ে এদিন বাংলাদেশের সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক তাওহীদ হৃদয়। ১০২ বলে ৩ চার ও ৫ ছক্কায় ৯৬ রান করেন তিনি। তাসকিনের ব্যাট থেকে এসেছে ১৮ রান।


Posted

in

by

Tags:

Comments

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *