Kolome71

সিরিজ এলেই কেন আলোচনায় আসে ‘তামিম ইস্যু’?

গেলো কয়েকটা সিরিজের মতো এবারও লঙ্কা-বাংলা ওয়ানডে সিরিজের আগে, পরিস্থিতি জটিল করছে তামিম ইকবাল ইস্যু। সম্প্রতি তামিমের এক মন্তব্যে দ্বিধাবিভক্ত টাইগার ক্রিকেট। বিশ্লেষকরা বলছেন, আর কত? এবার দেশের স্বার্থেই একটা সিদ্ধান্তে পৌঁছানো উচিত বোর্ড আর তামিম দু’পক্ষেরই। কথার লড়াই বন্ধ করার আহ্বান।

জটিল হলো নাকি জটিল করলেন। এক তামিম ইকবাল ইস্যুতে ভাগ দেশের ক্রিকেট। খেলবেন নাকি খেলবেন না এই একটা উত্তর খুঁজতেই, হয়ারান সবাই। তার চাইতেও বড় প্রশ্ন তুষের আগুনের মতো জ্বলতে থাকা, যে কোন টুর্নামেন্ট বা সিরিজের আগে উষ্কে ওঠা এই সমস্যার সমাধান কোথায়!

তামিম নিজেও যেন জিইয়ে রেখেছেন তার অবসর নাটক। হাথুরুর অধীনে খেলবেন না, চলতি বছর মাঠে নামবেন না, কত তার বাহানা। এ যেন চরম অপেশাদারিত্ব।

বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের সাবেক পরিচালক সিরাজ উদ্দিন মোহাম্মদ আলমগীর বলেন, ‘এটা আসলে অনাকাঙ্ক্ষিত। এটা হওয়া উচিত না। এটা নিয়ে বারবার কথা বলার কারণ কিন্তু খেলোয়াড়দের মানসিক দিক থেকে প্রভাব পড়বেই। শর্তের কোন বিষয় এখানে নেই কিন্তু। এখানে দুই পক্ষের বোঝাপড়ার বিষয়। এখানে কথা হচ্ছে দেশের জন্য খেলা। এখানে ব্যক্তিগত যদি কোন সমস্যা থাকে, তাও কিন্তু সমাধান করা যায়। যদি সমাধান নাও হয় তবুও কিন্তু আপনার দেশের হয়ে খেলে যেতে হবে। আর বোর্ড যখন সিদ্ধান্ত নেবে, তখন কিন্তু দেশকেই প্রাধান্য দেবে।’

দায় এড়াতে পারে না বিসিবিও। সমাধান নয় বোর্ডও যেন পরিস্থিতি আরো জটিল করছে।

সিরাজ উদ্দিন মোহাম্মদ আলমগীর বলেন, ‘বোর্ডেরও কিছু সীমাবদ্ধতা আছে। যদি কোন শর্ত থাকে, তবে বোর্ডও কিন্তু সকল দিক বিবেচনা করেই সব সিদ্ধান্ত নেবে।’

তামিম ইকবাল দেশের কিংবদন্তি ক্রিকেটার। নিভৃতে বিদায় তার প্রাপ্য নয়। তবে এটাও বুঝতে হবে দেশের স্বার্থে জলঘোলা কম করাটাই ভালো।


Posted

in

by

Tags:

Comments

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *