Kolome71

এমবাপ্পে-বেলিংহ্যাম-হলান্ডকে একসঙ্গে রিয়ালে দেখছেন রোনালদো

এই মৌসুমে রিয়াল মাদ্রিদের তরুণ ব্রিগেডে যোগ দেন ইংলিশ ওয়ান্ডার বয় জুড বেলিংহ্যাম। লা লিগায় প্রথম মৌসুমেই আলো ছড়াচ্ছেন এই ২০ বছর বয়সী মিডফিল্ডার। এই মৌসুম শেষেই রিয়ালের তারকাপুঞ্জে নাম লেখানোর কথা ফরাসি সুপারস্টার কিলিয়ান এমবাপ্পের। রিয়ালের নতুন গ্যালাক্টিকো প্রজেক্ট অবশ্য এখানেই থেমে থাকবে না তা বলাই যায়।

লিওনেল মেসি-ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো যুগের অবসানের পর লা লিগা অনেকটাই ম্লান হয়ে পড়েছে। প্রিমিয়ার লিগের দলগুলোয় তারকার মেলা বসলেও অর্থ সংকটে অনেকটাই পিছিয়ে পড়েছে লা লিগার দলগুলো। তবে রিয়াল মাদ্রিদ সেই হিসেবের বাইরে। দারুণ আর্থিক ভিত্তির ওপর দাঁড়িয়ে ফের তারকায় ঠাঁসা দল গড়ছে তারা। ভিনিসিউস জুনিয়র, রদ্রিগো, কামাভিঙ্গা, শুয়েমিনি, এনদ্রিক আর আর্দা গুলারদের নতুন প্রজন্মের সঙ্গে আগামী মৌসুমে কিলিয়ান এমবাপ্পে নাম লেখালে রিয়াল যে আরও বেশি ভয়ঙ্কর হয়ে উঠবে তা বলাই যায়। তবে রিয়াল মাদ্রিদ ও ব্রাজিলের কিংবদন্তি রোনালদো নাজারিও মনে করেন, এখানেই রিয়াল থেমে থাকবে না, বরং আরও তারকা দলে টানা উচিত তাদের।

রোনালদোর মতে, এমবাপ্পের সঙ্গে যদি সময়ের আরেক সেরা তারকা আর্লিং হলান্ডকেও রিয়াল দলে টানতে পারে তবে তা দুর্দান্ত হবে। এমবাপ্পে ও হলান্ডের সঙ্গে জুড বেলিংহ্যামের জুটি ‘পাগলাটে’ ব্যাপার হবে বলে মনে করেন তিনি।

২০২২ সালে ম্যানচেস্টার সিটিতে যোগ দেয়ার পর নরওয়েজিয়ান তারকা হলান্ড হুলস্থূল ফেলে দিয়েছেন। এরই মধ্যে অসংখ্য রেকর্ড ভেঙে ঐতিহাসিক ট্রেবল জিতিয়েছেন প্রিমিয়ার লিগের দলটিকে। এতো সাফল্যে এরই মধ্যে সিটির কিংবদন্তির খাতায় নাম লেখানো হলান্ড উড়িয়ে দেননি রিয়াল মাদ্রিদে যোগ দেয়ার গুঞ্জন। সম্প্রতি এক সাক্ষাৎকারে সিটি তারকা হলান্ড রিয়াল মাদ্রিদে যোগ দেয়ার গুঞ্জন প্রসঙ্গে বলেন, ‘আপনি জানেন না ভবিষ্যতে কী হতে যাচ্ছে।’ সম্ভাবনা মোটেই উড়িয়ে দিচ্ছেন না তিনি।

ব্রাজিলের কিংবদন্তি রোনালদো এই কথায় স্পেনের রাজধানীতে ভবিষ্যৎ দেখছেন নরওয়েজিয়ান গোলমেশিনের। ব্রিটিশ গণমাধ্যম ডেইলি মেইলকে তিনি বলেন, ‘রিয়াল মাদ্রিদের নীতিই হচ্ছে বিশ্বের সেরা খেলোয়াড়কে দলে টানার। হলান্ড বিশ্বের অন্যতম সেরা খেলোয়াড়। সবাই হলান্ডকে পেতে চায়। সে একটি অবিশ্বাস্য ক্লাবে আছে। সিটি যা করছে তা অবিশ্বাস্য, আমার মনে হয়, এই মুহূর্তে সে সেখানে সুখী। কিন্তু, আমরা অনেক কিছুই দেখতে পারব। আমি আশা করি, একদিন আমরা এই সব দুর্দান্ত খেলোয়াড়কে একই ক্লাবে খেলতে দেখব।।’

ফ্লোরেন্তিনো পেরেজ রিয়াল মাদ্রিদে প্রথম দফা প্রেসিডেন্টের দায়িত্ব নিয়ে গড়ে তুলেছিলেন গ্যালাক্টিকোস। সেই গ্যালাক্টিকোর অংশ ছিলেন রোনালদো নিজেও। সেই দলে আরও ছিলেন ডেভিড বেকিহ্যাম, লুইস ফিগো, জিনেদিন জিদান, রাউল, রবার্তো কার্লোস। এমবাপ্পে-হলান্ড ও বেলিংহ্যামকে রিয়াল দলে ভেড়াতে পারলে তার সেই গ্যালাক্টিকোর কথা মনে পড়বে বলে জানান রোনালদো।

এই কিংবদন্তি বলেন, ‘এটা আমাকে গ্যালাক্টিকোর কথা মনে করিয়ে দেবে যদি তারা সবাই (হলান্ড, এমবাপ্পে, বেলিংহ্যাম) রিয়াল মাদ্রিদে শেষ করে। যদি এটা ঘটে (সবাই রিয়ালে যোগ দেন) , রিয়াল মাদ্রিদে এই সকল খেলোয়াড়কে একসঙ্গে খেলতে দেখাটা পাগলাটে ব্যাপার হতে যাচ্ছে। এটা একটা অবিশ্বাস্য দল হবে, যারা অনেক উল্লেখযোগ্য জিনিস অর্জন করবে। তবে আমি মনে করি, এমন সব খেলোয়াড়কে একসঙ্গে সামলানো কার্লো আনচেলত্তির জন্য বড় চ্যালেঞ্জ হবে। তবে সেরা খেলোয়াড়দের সামলানো বাজে খেলোয়াড়দের সামলানোর চেয়ে সহজ। এটা কোচের জন্য খুব বেশি কঠিন হবে না।’

হলান্ডের রিয়ালে যোগ দেয়ার গুঞ্জনটি মূলত এক বছরের পুরনো। তবে আগামী মৌসুমে এমবাপ্পের রিয়ালে যোগ দেয়ার বিষয়টি অনেকটাই নিশ্চিত।


Posted

in

by

Tags:

Comments

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *